গরমে মুখের ব্রণ থেকে মুক্তির উপায়

ব্রণ একটি সাধারণ সমস্যা। যে কোনো ত্বকেই ব্রণের উৎপাত দেখা দিতে পারে। তবে তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ হওয়ার ঝুঁকি থাকে বেশি। গরমে ব্রণের সমস্যা আরও মারাত্মক আকার ধারণ করে।

গরমে তীব্র তাপের কারণে ত্বক সব সময়ই ঘামে। ফলে ত্বকের কোষগুলো স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি আঁঠালো হয়ে যায়। মৃত চামড়া বাইরের পৃষ্ঠে ধ্বংসাবশেষ হিসেবে জমা হয়।

যা ত্বকের নিচে অক্সিজেনে নেতিবাচক পরিবেশ তৈরি করে, যেখানে ব্যাকটেরিয়া প্রাকৃতিকভাবে সংখ্যা বাড়ায়। এটি ত্বকে প্রদাহ সৃষ্টি করে, ফলে ব্রণ হয়। জেনে নিন গরমে কেন বাড়ে ব্রণ-

>> গরমে সবাই কমবেশি চিনিযুক্ত পানীয় পান করেন। এতে ব্রণের ঝুঁকি বেড়ে যায়। উচ্চ গ্লাইসেমিক সূচকযুক্ত এসব পানীয় রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়াতে পারে, যা রক্তে ইনসুলিনের প্রয়োজনীয়তাও বাড়ায়।

আর ইনসুলিন বেশি উৎপাদন হলে সিবামও বেড়ে যায়। যা ত্বকের ছিদ্রগুলোকে আটকে দেয় ও ব্রণের সৃষ্টি হয়। তাই গরমে কোমল পানীয় ও প্রক্রিয়াজাত খাবার গ্রহণে বিরত থাকুন।

>> এ সময় সানস্ক্রিন ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সতর্ক থাকুন। সব সময় চেষ্টা করুন অয়েল ফ্রি সানস্ক্রিন ব্যবহার করার। তৈলাক্ত ঘরানার সানস্ক্রিন আপনার ত্বকের ছিদ্রপথ আটকে দেয়। তাই এ সময় টাইটানিয়াম অক্সাইড বা জিংক অক্সাইডযুক্ত সানস্ক্রিন বেছে নিন।

>> ব্রণ থেকে মুক্তি পেতে স্যালিসিলিক অ্যাসিড বা বেনজয়াইল পারক্সাইডযুক্ত পণ্য ব্যবহার করবেন না। রাসায়নিকভিত্তিক এসব পণ্য সব ধরনের ত্বকের জন্য উপযুক্ত নয়।

এগুলো ব্যবহারের আগে অবশ্যই প্যাচ টেস্ট করে নেবেন। তার চেয়ে আলফা-হাইড্রক্সি-অ্যাসিড বা স্যালিসিলিক অ্যাসিড দিয়ে ফোমিং ক্লিনজার করুন ত্বকে।

>> ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে প্রচুর পানি ও তরল জাতীয় পুষ্টিকর খাবার খান। তৈলাক্ত ত্বকের জন্যও আর্দ্রতা জরুরি। আর্দ্রতা ছাড়া ত্বক কোমলতা হারায়। হায়ালুরোনিক অ্যাসিডযুক্ত ও হালকা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

>> ত্বকের ব্রণ এড়াতে নিয়মিত এক্সফোলিয়েট করুন। এতে ত্বকের ছিদ্রগুলোয় উপস্থিত টক্সিন ও নোংরা দূর হয়ে যাবে। এজন্য গ্লাইকোলিক অ্যাসিডযুক্ত এক্সফোলিয়েটিং ক্লিনজার ব্যবহার করুন।

>> দিনে ২-৩ বার ভালোভাবে ত্বক পরিষ্কার করুন। তবে অত্যধিক সাবান ত্বকের জন্য খারাপ হতে পারে। সাধারণভাবেই মুখ ধুয়ে নিন। সকালে ও সন্ধ্যায় একবার ক্লিনজার ও এক্সফোলিয়েটর ব্যবহার করুন।

>> ব্রণ সারাতে একগুচ্ছ নিমপাতা পানিতে সেদ্ধ করে মুখ ধোয়ার কাজে ব্যবহার করুন। বাইরে থাকাকালীন ফেস মিস্ট হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন গোলাপজল ও শসার মিশ্রণ।

Check Also

রাতে লাইট জ্বালিয়ে ঘুমালে যে রোগের ঝুঁকি বাড়ে

শারীরিক সুস্থতার জন্য পর্যাপ্ত ঘুম সবার জন্যই প্রযোজ্য। তবে বর্তমানে জীবনযাপনে অনিয়মের কারণে অনেকেই অনিদ্রাসহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.